BL COLLEGE JOURNAL

“Journal writing gives us insights into who we are, who we were, and who we can become”
– Sandra Marinella

নোয়াম চমস্কির অন্বয়তত্ত্ব ভাবনার কয়েকটি দিক ও বাংলা বাক্য

Author

ড. বিপ্লব দত্ত, সহকারী অধ্যাপক, ডেবরা থানা শহীদ ক্ষুদিরাম স্মৃতি মহাবিদ্যালয়, পশ্চিম মেদিনীপুর, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত

বাক্যের ধারণা সংস্কৃত ব্যাকরণে আমরা পাই মূলত স্ফোটবাদী বৈয়াকরণদের ভাবনাচিন্তায়। কিন্তু পাণিনি প্রমুখের আলোচনায় যখন পদনির্মিতির প্রসঙ্গ আসে তখন বাক্যের ধারণা চলেই আসে। কতকগুলি ধ্বনির সমবায়ে গঠিত একটা শব্দ সবসময় পূর্ণ ভাব প্রকাশ করতে পারে না। তাই আমরা শব্দগুলিকে নির্দিষ্ট পদ্ধতিতে কতকগুলি বিভক্তি জুড়ে একটা পদগুচ্ছ এবং একাধিক পদগুচ্ছ জুড়ে একটি বাক্য রচনা করি। একটি বাক্য বলার পর মনের ভাবপ্রকাশ সন্তোষজনক হলে ক্ষণিক বিরতি নিই বা লেখায় একটা যতি চিহ্ন বসিয়ে দিই। সবটাই একটা নির্দিষ্ট অনুশাসন মেনে চলে। যেহেতু আমাদের কাছে দুটি আদর্শ আছে একটি সংস্কৃত ও অন্যটি পাশ্চাত্ত্য (সেটা লাতিন বা ইংরাজি হতে পারে) তাই আমরা কোনটিকে গ্রহণ করবো? কার্যক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে আমরা এই দুটি পৃথক আদর্শের দ্বারাই কমবেশি প্রভাবিত হয়েছি। যদিও এটি স্বতন্ত্র আলোচনার দাবি রাখে। বলা বাহুল্য পাশ্চাত্যের ব্যাকরণ ভাবনা প্রথাগত ভাবনাচিন্তা ছাড়িয়ে অনেকদূর অগ্রসর হয়েছে। এরপর যার কথা বলতেই হয় তিনি নোয়াম চমস্কি, বিশ শতকের ব্যাকরণ ভাবনা তাঁর দ্বারা প্রভাবিত হয়েছে। ভাষাতত্ত¡ চর্চার ক্ষেত্রে অনেকগুলি তত্ত¡ তিনি আমাদের সামনে হাজির করেছেন। যে ভাষা আমাদের কাজের ভাষা (সেটা মাতৃভাষাও হতে পারে, কিছুক্ষেত্রে যখন কোনো ভাষা কাজের ভাষা হয়ে উঠতে পারে না তখন সেই ভাষায় আমাদের বাক্য সঞ্জননের দক্ষতা কমে যায়) সেখানে নির্দিষ্ট সংখ্যক শব্দ দিয়ে যত ইচ্ছা যেমন ইচ্ছা বাক্য রচনা করতে পারি। উদ্দেশ্য- বিধেয় ভিত্তিক বাক্য বর্ণনা এবং সাংগঠনিক ব্যাকরণে ‘যত ইচ্ছা’ বাক্যের ব্যাখ্যা সম্ভব নয় বলেই এল সঞ্জননী তত্ত্ব। এই আলোচনায় চমস্কির মাত্র কয়েকটি তত্ত্ব বিশেষ করে সঞ্জননী তত্তে¡র প্রসঙ্গ এসেছে যেগুলি দিয়ে একটু অন্যভাবে বাংলা বাক্যের আন্বয়িক সম্পর্ককে বোঝার চেষ্টা করা হয়েছে।

Keywords: উদ্দেশ্য, বিধেয়, বাক্যের অব্যবহিত উপাদান, বৈপরীত্য ও প্রতিকল্পন, চমস্কি, ফ্রেজ স্ট্রাকচার রুল, এক্স বার, থীটা রোল

References:

তথ্যসূত্র

১. সঞ্জননী তত্ত্বের আলোচনায় সংস্কৃত ব্যাকরণের (যদিও এই বিষয়টি পৃথক আলোচনার দাবি রাখে) প্রসঙ্গ আসা স্বাভাবিক, কারণ চমস্কি (১৯৬৫:ঠ) মনে করেছেন- “Panini’s grammar can be interpreted as a fragment of such a “generative grammar,” in essentially the contemporary sense of this term.”

২. সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায় ‘Compatibility’ বা ‘Propriety’ অর্থে ‘যোগ্যতা’কে বুঝিয়েছেন অন্যদিকে হুমায়ুন আজাদ ‘ঝবষবপঃরড়হধষ জবংঃৎরপঃরড়হ’ অর্থে গ্রহণ করেছেন। যদিও দুটি অর্থের মধ্যে কোনও সংঘাত নেই (চট্টোপাধ্যায় ২০০৩: ৩৬৩) (আজাদ ২০১০:২২)

৩. হুমায়ুন আজাদ আকাক্সক্ষার অর্থ বলতে বুঝিয়েছেন Co-occurrence Restriction’-কে, আবার সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায় বলেছেন আকাক্সক্ষার অর্থ ‘Expectancy’ (চট্টোপাধ্যায় ২০০৩: ৩৬৩) (আজাদ ২০১০:২২)

৪. (দ্রঃ আজাদ ২০১০: ২৪

৫. ‘উদ্দেশ্য’ আসলে ইংরাজির ‘সাবজেক্ট’ তা সংস্কৃতের ‘কর্তা’ নয়, সংস্কৃতের কর্তা আর ইংরাজির সাবজেক্ট অনেকসময়ই আলাদা হতে পারে।

৬. এই উদ্দেশ্যটিকে compound subject হিসাবে ধরা যেতে পারে।

৭. ইসলাম ও সরকার (সম্পা) ২০১২:৩৪৮

৮. ইসলাম ও সরকার (সম্পা) (২০১২:৩৮৩)

৯. দ্রঃ আজাদ (২০১০:১০৯)

১০. আজাদ (২০১০:১১০) এই পদ্ধতির নাম দিয়েছেন ‘বণ্টনিক বাক্যবর্ণনা কৌশল’

১১. Chomsky (১৯৮৮:৪৯

১২. ভট্টাচার্য (১৯৯৮: ১১৩)

১৩. ভট্টাচার্য (১৯৯৮: ১১৫)

গ্রন্থপঞ্জি

আজাদ, হুমায়ুন, ২০১০, ‘বাক্যতত্ত্ব’, ঢাকা: আগামী প্রকাশনী

আজাদ, হুমায়ুন (সম্পা), ২০১১, বাঙলা ভাষা (প্রথম খন্ড), ঢাকা : আগামী প্রকাশনী

আজাদ, হুমায়ুন (সম্পা), ২০১১, বাঙলা ভাষা (দ্বিতীয় খন্ড), ঢাকা : আগামী প্রকাশনী

ইসলাম, রফিকুল ও সরকার, পবিত্র (সম্পা),২০১২, ‘প্রমিত বাংলা ভাষার ব্যাকরণ’ (প্রথম খন্ড), ঢাকা: বাংলা একাডেমী

চক্রবর্তী, উদয়কুমার, ২০১২, ‘বাংলা পদগুচ্ছের সংগঠন’, কলকাতা: দেজ

ঐ                      , ২০১৬, ‘বাংলা সংবর্তনী ব্যাকরণ’, কলকাতা: দেজ

ঐ ও চক্রবর্তী, নীলিমা, ২০১৬, ‘ভাষাবিজ্ঞান’, কলকাতা: দেজ

চট্টোপাধ্যায়, সুনীতিকুমার, ২০০৩, ‘ভাষাপ্রকাশ বাঙ্গালা ব্যাকরণ’, দিল্লী: রূপা

চক্রবর্তী, সত্যনারায়ণ, ২০১৩, পাণিনীয় শব্দশাস্ত্র, কলকাতা : সংস্কৃত পুস্তক ভান্ডার

দাশগুপ্ত, প্রবাল, ২০১২, ‘ভাষার বিন্দুবিসর্গ’, কলকাতা: গাঙচিল

দাক্ষী, অলিভা, ২০০৩, বাংলা ভাষাবিজ্ঞান অভিধান, কলকাতা : সংস্কৃত পুস্তক ভান্ডার

দাস, করুণাসিন্ধু, ২০১২, সংস্কৃত ব্যাকরণ ও ভাষা প্রসঙ্গ, কলকাতা : সদেশ

বেগম, রাশিদা, ১৯৯৯, বাংলা অনুসর্গের গঠন-প্রকৃতি ও বাক্যে অনুসর্গের ভূমিকা, ঢাকা : বাংলা একাডেমী

ভট্টাচার্য, শিশির, ২০১৩, ‘অন্তরঙ্গ ব্যাকরণ’, ঢাকা: নবযুগ প্রকাশনী

ঐ                      , ১৯৯৮, সঞ্জননী ব্যাকরণ’ , ঢাকা: চারু

মুখোপাধ্যায়, বাসুদেব, ২০১২, ‘স্কিনার চমস্কি ভাষাবিজ্ঞান’, কলকাতা: পাবলভ

মোরশেদ, আবুল কালাম মনজুর, ২০০৭, ‘আধুনিক ভাষাতত্ত¡’, কলকাতা: নয়া উদ্যোগ

শ, রামেশ্বর, ১৪০৩, ‘সাধারণ ভাষাবিজ্ঞান ও বাংলা ভাষা’, কলকাতা: পুস্তক বিপণি

শহীদুল্লাহ, মুহম্মদ, ২০০৮, ‘বাঙ্গালা ব্যাকরণ’, ঢাকা : মাওলা ব্রাদাস

সরকার, পবিত্র, ২০০৬, ‘বাংলা ব্যাকরণ প্রসঙ্গ’, কলকাতা: দেজ

ঐ , ২০১৩, ‘চমস্কি ব্যাকরণ ও বাংলা বানান’, কলকাতা: পুনশ্চ

ঐ , ২০১১, ‘পকেট বাংলা ব্যাকরণ’, ঢাকা: পাঞ্জেরী

Chomsky, Noam, 1957, Syntactic Structures, Berlin: Mouton de Gruyter

Chomsky, Noam, 1965, Aspects of the Theory of Syntax, Massachusetts: MIT Press

Chomsky, Noam, 1988, Lectures on Government and Binding, Holland: Foris Publications

Carnie, Andrew, 2007, Syntax: A Generative Introduction, UK: Wiley Blackwell

Valin Jr, Robert D Van, 2001, An Introduction to Syntax, UK: Cambridge

Thakur, D, 2011, Linguistics Simplified Syntax, New Delhi: Bharati Bhawan

Verma, S.K & Krisnaswami, N, 2010, Modern Linguistics: An Introduction, Oxford: New Delhi

How to Cite

MLA 9th Edition

দত্ত বিপ্লব. “নোয়াম চমস্কির অন্বয়তত্ত্ব ভাবনার কয়েকটি দিক ও বাংলা বাক্য.” বিএল কলেজ জার্নাল, ভলিউম ৪, ইস্যু ১, জুলাই ২০২২, পৃ. ৫১-৬২.  https://doi.org/10.62106/blc2022v4i1b5

 

APA 7th Edition

দত্ত বিপ্লব. (২০২২). নোয়াম চমস্কির অন্বয়তত্ত্ব ভাবনার কয়েকটি দিক ও বাংলা বাক্য. বিএল কলেজ জার্নাল, ৪ (১), ৫১-৬২.  https://doi.org/10.62106/blc2022v4i1b5

License

Copyright (c) 2023 GOVT. BRAJALAL COLLEGE

Indexed In